Connect with us

ক্রিকেট

বিশ্বের সর্বোচ্চ বেতন প্রাপ্ত ৭ জন ক্রিকেট কোচ

ক্রিকেট শারীরিক শক্তি নির্ভর খেলা হলেও এখানে মানসিক চাপও থাকে। বিশেষত বড় কোনো টুর্নামেন্টে প্রত্যেক দলের উপরই মানসিক চাপ কাজ করে। ক্রিকেট মাঠে খেলোয়াড়দের পরিচালনা করেন অধিনায়ক। কিন্তু মাঠে বাইরে থেকে তার সাহায্য প্রয়োজন হয়। আর সেই সহায়তা করার জন্যই প্রতিটি দলে একজন করে হেড কোচ থাকেন। যারা ম্যাচের পূর্বে সকল রণকৌশল নির্ধারণ করেন। ক্রিকেট ইতিহাস বলে প্রতিটি দলের সাফল্যের মূল কারিগর হলেন কোচ। কিন্তু মাঠের বাইরের এই মানুষদের ভক্তরা খুবই কম চেনেন।

গত দশক থেকেই ক্রিকেটে পেশাদারিত্ব অনেক বেশি বেড়েছে। সেই সাথে বেড়েছে অর্থের সরবরাহ। বর্তমানে ক্রিকেটার থেকে শুরু করে সকল কোচিং স্টাফই বিপুল পরিমাণ অর্থ আয় করে থাকেন। তাই অর্থের দিক থেকে ক্রিকেট কোচরা খেলোয়াড়দের চেয়ে আর পিছিয়ে নেই। বরং কোনো কোনো কোচ এগিয়ে আছেন। আজ আমরা আলোচনা করবো বিশ্বের সর্বোচ্চ বেতন প্রাপ্ত সাত ক্রিকেট কোচকে নিয়ে।

০৭. মিকি আর্থার (১ কোটি ৮৬ লাখ টাকা)

পাকিস্তানের ক্রিকেট ইতিহাসে কোচ ও অধিনায়কের মধ্যে কখনোই সুসম্পর্ক বজায় থাকেনি। কিন্তু বর্তমান কোচ মিকি আর্থারের সাথে বেশ দহরম-মহরম। ২০১৭ সালে সরফরাজ খানের নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা জেতে পাকিস্তান। কিন্তু পর্দার আড়ালের নায়ক ছিলেন এই অজি কোচ। ওডিআইতে খারাপ সময় কাটলেও টি টোয়েন্টি পাকিস্তান শীর্ষ দল। এই সাফল্যের অগ্রনায়ক আর্থার।

মিকি আর্থার; Image Source: Getty Images

২০১৬ সালে তিনি পাকিস্তানের কোচ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। আর এর মধ্য দিয়ে অল্প দিনের কোচিং ক্যারিয়ারে তিনটি আন্তর্জাতিক দলের কোচ হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন। আর্থার এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ ছিলেন। তার অধীনে প্রোটিয়ারা একদিনের ক্রিকেটে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ উঠেছিল। নিজ দেশের ক্রিকেট দলের কোচ হলেও। সেটা তার সুখকর ছিল না। তবে পাকিস্তানের কোচ হিসেবে ভালো সময় পার করছেন মিকি। আর এর জন্য বছরে বেতন বাবদ পকেটে তুলছেন ১ কোটি ৮৬ লাখ টাকা।

০৬.স্টিভ রোডস (২ কোটি টাকা)

চলতি বছর অনেক জল্পনা-কল্পনার পর বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ হিসেবে নিয়োগ পান স্টিভ রোডস। এর আগে তিনি ইংলিশ ক্লাব ওরচেস্টারশায়ারে ১১ বছর পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন। নিজে ক্রিকেটার হিসেবে নয় শতাধিক ঘরোয়া ক্রিকেট ম্যাচ খেলেছেন। তার অধীনে বেশ দলের শুরুটা দুর্দান্ত হয়েছে। তার ঘষামাজায় টাইগার বাহিনী প্রথমবারের মতো ত্রিদেশীয় সিরিজ জয় করেছে।

স্টিভ রোডস; Image Source: Getty Images

ত্রিদেশীয় সিরিজে সাফল্য পাওয়ার বিশ্বকাপে ভালো ফলাফলের আশা করেছিলেন ভক্তরা। কিন্তু রোডসের শিষ্যরা সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি। তার আগে বাংলাদেশের হাই-প্রোফাইল কোচ ছিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। লঙ্কান কোচ বেতন পেতেন প্রায় ২২ লাখ টাকা। তার চেয়ে প্রায় ৩০ শতাংশ বেতন কম পাচ্ছেন রোডস। তার মাসিক বেতন ১৫-১৭ লাখ টাকা। যা বছর শেষে মোট দাঁড়াবে প্রায় ২ কোটির কাছাকাছি।

০৫. গ্যারি স্টিড (২ কোটি ১২ লাখ টাকা)

২০১৫ বিশ্বকাপের মতো এবারও দুর্দান্ত এক বিশ্বকাপ পার করছে নিউজিল্যান্ড। টুর্নামেন্টে শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলেছে তারা। যদিও প্রথম রাউন্ডের শেষ দিকে এসে পারফরম্যান্সে কমতি দেখা গেছে। কেন উইলিয়ামসনের দল গত বিশ্বকাপে ফাইনাল খেলেছে। এবার তারা ইতোমধ্যে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে। তবে কিউইদের এতসব সাফল্যের মূল হোতা গ্যারি স্টিড। তার অধীনেই সুসময় পার করছে ব্লাক ক্যাপসরা।

গ্যারি স্টিড; Image Source: Getty Images

স্টিডের আগে কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মাইক হেসন। মূলত তার সময়েই বদলে যেতে থাকে কিউইরা। তার বিদায়ের পর দলের দায়িত্ব দেওয়া হয় স্টিডকে। স্টিড কোচ হওয়ার পর প্রথমবারের মতো পাকিস্তানের বিপক্ষে তাদের ঘরের মাঠ (বলা যায়) সংযুক্ত আরব আমিরাতে টেস্ট সিরিজ জিতেছে নিউজিল্যান্ড। দলকে সাফল্য এনে দেওয়ার পাশাপাশি মোটা অঙ্কের অর্থ বেতন নিচ্ছেন স্টিড। তার বার্ষিক বেতন ২ কোটি ১২ লাখ।

০৪.চন্ডিকা হাথুরুসিংহে (২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা)

শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট যখন রীতিমতো অবনমনের দিকে যাচ্ছিল, তখন ভালো মানের একজন কোচের প্রয়োজন ছিল। লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের নজর ছিল স্বদেশী চন্ডিকা হাথুরুসিংহের দিকে। তার এর আগেও শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট দলের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা ছিল। ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কার সাবেক কোচ ট্রেভর বেলিসের সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন। তিন বছর শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলকেও কোচিং করিয়েছেন।

চন্ডিকা হাথুরুসিংহে; Image Source: Getty Images

হাথুরুসিংহেকে যখন শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন তখন তিনি বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ। টাইগারদের হয়ে তিনি দারুণ সাফল্য পেয়েছেন। তার অধীনে ভারত, পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে সিরিজ জয় করে বাংলাদেশ। এজন্য তার প্রতি লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের আস্থা ছিল অনেক বেশি। হাথুরুসিংহে নিজেও চেয়েছেন দেশের হয়ে কাজ করার জন্য। সবশেষে তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচের পদ ছেড়ে শ্রীলঙ্কার দায়িত্ব নেন। আর এর জন্য তিনি বার্ষিক ২ কোটি ৫৪ লাখ বেতন নিচ্ছেন।

০৩.ট্রেভর বেলিস ( ৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা)

২০১৯ বিশ্বকাপে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের সাফল্যের প্রধান কারিগর ট্রেভর বেলিস। ২০১৫ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বাজেভাবে বিদায় নেওয়ার পর বেলিসের অধীরে পুরোপুরি ঘুরে দাঁড়িয়েছে ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ডের আগে তিনি শ্রীলঙ্কার জাতীয় দলের কোচ ছিলেন। তার সময়ে লঙ্কানরা পরপর ২০০৭ ও ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছে।

ট্রেভর বেলিস; Image Source: Getty Images

জাতীয় দলের পাশাপাশি ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটেও বেলিসের সাফল্য রয়েছে। তার অধীনে প্রথমবারের মতো বিগ ব্যাশের শিরোপা জয় করে সিডনি সিক্সার্স। এদিকে আইপিএলে শাহরুখ খানের কলকাতা নাইট রাইডার্সকে দুইবার চ্যাম্পিয়ন করেছেন বেলিস। এই সকল সাফল্যের মাধ্যমেই তিনি ইংল্যান্ডের ক্রিকেট বোর্ডের আস্থা অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি মরগান-স্টোকসদের পরিচালনা করছেন। আর এজন্য বেতন হিসেবে প্রতিবছর পাচ্ছেন ৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

০২.জাস্টিন ল্যাঙ্গার (৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা)

গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকায় বল টেম্পারিংয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দলের উপর দিয়ে ঝড় বয়ে যায়। নিষিদ্ধ করা হয় অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ ও সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে। সরে দাঁড়ান কোচ ড্যারেন লেম্যান। অজি ক্রিকেটের উত্তাল সময়ে কোচের দায়িত্ব পান সাবেক অজি তারকা জাস্টিন ল্যাঙ্গার। তিনি তার ক্যারিয়ার জুড়ে শৃঙ্খলা বজায় রেখেছেন। কোচ হিসেবেও তিনি সেই ধারা অব্যাহত রাখেন।

জাস্টিন ল্যাঙ্গার; Image Source: Getty Images

আরো পড়ুন: বিশ্বের সবচেয়ে ধনী পাঁচ ক্রিকেটার

কোচ হিসেবে তার শুরুটা ভালো হয়নি। তার অধীনে প্রথম সিরিজেই ঘরের মাঠে ভারতের কাছে হেরে বসে অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু তার কৌশল ধীরে ধীরে দলের উপর কাজ করতে শুরু করে। এবং তারপর থেকেই অস্ট্রেলিয়া স্বরূপে ফিরতে শুরু করে। তার অধীনে ভারতকে নিজেদের মাটিতে হারিয়েছে অজি ক্রিকেট দল। আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে। এদিকে বিশ্বকাপেও তার শিষ্যরা দুর্দান্ত পারফর্ম করছে। ল্যাঙ্গার বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে দামি ক্রিকেট কোচ। বেতনের দিক থেকে তিনি সবাইকে পেছনে ফেলেছেন। তার বর্তমান বার্ষিক বেতন ৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

০১. রবি শাস্ত্রী (৯ কোটি ৯০ লাখ)

ভারতের সাবেক তারকা ক্রিকেটার রবি শাস্ত্রীকে বলা যায় সত্যিকার অলরাউন্ডার। খেলোয়াড় হিসেবে সাফল্য পাওয়ার পর ধারাভাষ্যকার এবং কোট হিসেবেও সাফল্য পেয়েছেন। ২০১৫ বিশ্বকাপে শাস্ত্রী ছিলেন ভারতের ক্রিকেট দলেন পরিচালক। কোহলিদের সাথে দ্বন্দ্বে অনীল কুম্বলের প্রধান কোচ থেকে পদত্যাগের পর তার জায়গা দখলে নিয়েছেন শাস্ত্রী। তার অধীনে বিরাট কোহলিরা অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জয় করেছে।

রবি শাস্ত্রী; Image Source: Getty Images

অন্যদিকে, ওডিআইতে দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড হারিয়েছে টিম ইন্ডিয়া। যার পেছনের কারিগর হলেন শাস্ত্রী। বিরাট কোহলির সাথে চমৎকার বোঝাপড়া থাকায় ভারতীয় ক্রিকেট দলকে অতি দ্রুত আক্রমণাত্মক এক দলে পরিণত করেছেন। তার অধীনে চলতি বিশ্বকাপেও দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করছে ভারত। দলকে এমন সাফল্য এনে দেওয়ার জন্য রবি শাস্ত্রী বছরে বেতন বাবদ পাচ্ছেন ৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা।

2 Comments

2 Comments

  1. Like

    September 9, 2019 at 10:27 pm

    Photo Liker, autolike, Working Auto Liker, Autolike International, Increase Likes, Auto Like, Autoliker, Auto Liker, ZFN Liker, auto like, auto liker, Status Liker, Autoliker, Autolike, Photo Auto Liker, autoliker, Status Auto Liker

  2. TeoRab

    October 14, 2019 at 8:28 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More in ক্রিকেট