Connect with us

ক্রিকেট

বিশ্বকাপ পরিসংখ্যান: বাংলাদেশ বনাম নিউজিল্যান্ড

বিশ্বকাপের প্রথম আসর থেকে অর্থাৎ ১৯৭৫ বিশ্বকাপ থেকে নিয়মিত বিশ্বকাপের অংশগ্রহন করে আসছে নিউজিল্যান্ড। আর বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ক্যারিয়ার শুরু তার ঠিক ২৪ বছর পর ১৯৯৯ সালে। ক্যারিয়ারের শুরু একই সাথে না হলেও দুই দলের একটি জায়গায় বেশ মিল রয়েছে। সেটি হলো দুই দলের কোন দলই এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপ জিততে পারেনি।

বিশ্বকাপে কিউইদের সেরা সাফল্য বলতে ২০১৫ বিশ্বকাপে রানারআপ হওয়া আর বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেরা সাফল্যটাও ২০১৫ বিশ্বকাপেই আসে। আর সেটা হল কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারা। ১৯৯৯ বিশ্বকাপ থেকে ২০১৫ বিশ্বকাপ পর্যন্ত শুধুমাত্র ২০১১ বিশ্বকাপ ছাড়া বাকি চার বিশ্বকাপে দুই দলের মধ্যে লড়াই হয়। সেই লড়াইয়ে অবশ্য অভিজ্ঞ কিউইরাই এগিয়ে।

সাকিব ও মুশফিক; Image Source: dhakamonthly

২০১৯ বিশ্বকাপ রাউন্ড রবিন পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হওয়ায় বিশ্বকাপে সুযোগ পাওয়া দশ দল গ্রুপ পর্বে প্রত্যেকে বাকি দল গুলোর সাথে একটি করে ম্যাচ খেলবে। সে নিয়ম অনুযায়ী বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে গ্রুপ পর্বে একটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচটিতে ৫ই জুন দ্যা ওভাল স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে দুই দল।

চলুন দুই দলের মুখোমুখি বিশ্বকাপ পরিসংখ্যান সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক-

১৭ মে, ১৯৯৯; চেমসফোর্ড

নিউজিল্যান্ড ৬ উইকেটে জয়ী

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জন্য প্রথম বিশ্বকাপ ছিল ১৯৯৯ বিশ্বকাপ। আর অভিষেক বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে তারা মুখোমুখি হয় নিউজিল্যান্ডের। অবশ্য ম্যাচটির স্মৃতি ততোটা মনে রাখার মতো ছিল না বাংলাদেশের জন্য। অভিজ্ঞতার দিক থেকেও অনেকটাই পিছিয়ে ছিল টাইগাররা। ম্যাচটিতে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় কিউই অধিনায়ক স্টিফেন ফ্লেমিং।

Image Source: Icc

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ব্যাটম্যানদের ধারাবাহিক ব্যর্থতায় মাত্র ১১৬ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। কিউই বোলার জিওফ অ্যালট, ক্রিস কেয়ার্নস ও গেভিন লারসেন নেন ৩টি করে উইকেট। বাংলাদেশিদের মধ্যে ইনিংস সর্বোচ্চ ১৯ রান করেন এনামুল হক। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৩৩ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় ব্ল্যাক ক্যাপসরা।

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০০৩; কিম্বারলি

নিউজিল্যান্ড ৭ উইকেটে জয়ী

২০০৩ সালে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড। ম্যাচটিতে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ অধিনায়ক খালেদ মাসুদ। ব্যাটিংয়ে নেমে মোহাম্মদ আশরাফুলের ৫৬ ও মোহাম্মদ রফিকের অপরাজিত ৪১ রানে ৫০ ওভারে ১৯৮ রানের পুঁজি পায় বাংলাদেশ।

Image Source: Icc

সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ক্রেইগ ম্যাকমিলানের ইনিংস সেরা ৭৫ রানের উপর ভর করে ৩৩ ওভার ৩ বলে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় কিউইরা। এরই সাথে বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা দুই ম্যাচের দুইটিতেই হারের স্বাদ গ্রহন করে টাইগাররা। ম্যাচটিতে কিউদের ৩ উইকেটের সব কয়েকটি শিকার করেন খালেদ মাহমুদ।

২ এপ্রিল, ২০০৭; অ্যান্টিগুয়া

নিউজিল্যান্ড ৯ উইকেটে জয়ী

১৯৯৯ ও ২০০৩ বিশ্বকাপের পর ২০০৭ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে মুখোমুখি হয় দুই দল। সে বারও জয়ের দেখা পায়নি বাংলাদেশ। কিউই ব্যাটসম্যান স্টিফেন ফ্লেমিংয়ের অপরাজিত ১০২ রান ও বোলিংয়ে স্টাইরিসের ৪ উইকেট শিকারের দুর্দান্ত বোলিংয়ে সুবিধা করতে পারেনি বাংলাদেশ।

Image Source: Icc

ম্যাচটিতে টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে হয় টাইগারদের। মোহাম্মদ রফিকের অপরাজিত ৩০, তামিম ইকবালের ২৯ ও আফতাব আহমেদের ২৭ রানের উপর ভর করে ৪৮ ওভার ৩ বলে সব কয়েকটি উইকেট হারিয়ে ১৭৪ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১ উইকেট হারিয়ে ২৯ ওভার ২ বলে জয় তুলে নেয় কিউইরা। তাদের পক্ষে স্টিফেন ফ্লেমিং অপরাজিত ১০২ ও মার্শালের অপরাজিত ৫০ রান করেন।

১৩ই মার্চ, ২০১৫; হ্যামিলটন

নিউজিল্যান্ড ৩ উইকেটে জয়ী

২০১১ বিশ্বকাপে দুই দলের মধ্যকার কোন ম্যাচ অনুষ্ঠিত না হলেও ২০১৫ বিশ্বকাপে এসে একটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। এবারও হার এড়াতে পারেনি বাংলাদেশ। ম্যাচটিতে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় কিউই অধিনায়ক। এর আগের তিন দেখায় কখনো নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২০০ এর উপরে রান তুলতে পারেনি বাংলাদেশূ ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু এই বার মাহমুদউল্লাহ দুর্দান্ত ১২৮ রান ও সৌম্য সরকারের ৫১ রানের ইনিংসের উপর নির্ভর করে ২৮৮ রানের পুঁজি পায় টাইগাররা।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ; Image Source: Icc

মাহমুদউল্লাহ ১২৮ রানের ইনিংসটি বিশ্বকাপে করা কোন বাংলাদেশির পক্ষে সর্বোচ্চ ব্যাক্তিগত রানের ইনিংস। বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিলের শতকে জয়ের স্বপ্ন দেখে নিউজিল্যান্ড। পথিমধ্যে ম্যাচের গতিপথ পরিবর্তন করে দেন বাংলাদেশি বোলার সাকিব আল হাসান। ৮ ওভার বল করে তুলে নেন ৪ উইকেট। ম্যাচের শেষ দিকে ড্যানিয়েল ভেট্টোরি ও টিম সাউদির অসাধারণ ব্যাটিংয়ে ৭ বল এবং ৩ উইকেট হাতে রেখেই জয় তুলে নেয় নিউজিল্যান্ড।

Featured Image: bangladeshcricketboard

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More in ক্রিকেট